অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি

আমি নিশ্চিত যে আপনার কমপক্ষে একজন পরিচিত আছে বা কারো মুখ থেকে শুনেছেন যে অনলাইনে ইনকাম করে। আপনি হয়ত ভেবেছেন যে, এটি খুব সহজভাবে আয় করা যায়। আমি আপনাকে বলি, অর্থ উপার্জনের কোনও শর্টকাট নেই। আপনাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। মোটেই সহজ কোন পথ নয় অনলাইনে আয়। তবে আমাদের পোস্টের মাধ্যমে আপনি জেনে যাবেন যে,  কোথা থেকে শুরু করলে আপনি সফল হতে পারবেন। আমাদের Online Income এর ০১ নং পর্ব দেখুন এখান থেকে

অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি

অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি

Freelancing ফ্রিল্যান্সিংঃ 

আমি কি বাসায় বসে ইনকাম করতে পারবো ? হ্যাঁ আপনি সেটা করতে পারেন। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইনার বা ম্যানেজার, লেখক,পরামর্শদাতা ইত্যাদির পেশার হোন তাহলে  ফ্রিল্যান্সিং আপনার জন্য। অর্থাৎ এই কাজগুলাই আপনি অনালাইনে করবেন যখন তখন সেটা ফ্রিল্যান্সিং হবে। আপনি নিজেই বস হতে পারেন, যে কোনও জায়গা থেকে আপনার পছন্দ মতো সময়ে কাজ করতে পারেন। গুরু,আপওয়ার্ক,পিপল পার হাওয়ার,ফাইবার ইত্যাদির মতো সাইটে ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য সাইন আপ করুন তারপর কাজের জন্য আবেদন করুন এবং আপনার সার্ভিস সেল করুন।

Affiliate Marketing এফিলিয়েট মার্কেটিংঃ

ধরুন আপনার ওয়েবসাইট ব্লগ রয়েছে, তাহলে আপনি Affiliate Marketing এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সপ্ন বুনতে পারেন।  অনুমোদিত কোম্পানির সাথে আপনাকে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে তাদের সাইটে সাইন আপের মাধ্যমে। এখন তাদের প্রোডাক্ট এর রিভিউ আপনার সাইটে দিয়ে দিন এবং সাথে সাথে প্রোডাক্ট ক্রয়ের লিংক এড করে দিন। এর মানে হলো আপনার সাইটের ঐ পোস্টের যে যে ঢুকবে সে যদি চুক্তিবদ্ধ কোম্পানির লিংকে ঢুকে যায় ও পন্য ক্রয় করে তাহলে আপনি একটা কমিশন পেয়ে যাবেন।

অনলাইন ইনকাম

অনলাইন ইনকাম

 

Online Courses অনলাইন কোর্সঃ 

আপনার যদি কোন বিষয়ের উপর  দক্ষতা থাকে তাহলে অনলাইন কোর্স স্থাপন করে ইনকাম করতে পারেন। আপনি আপনার কোর্স উপকরণ হতে পারে ভিডিও, হতে পারে বই, একটা প্রাইভেট ওয়েবসাইটে আপলোড করতে পারেন এবং সেই সাইটেই শিক্ষার্থীদের পরিচালনা করতে প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করতে পারেন।

Start Blogs- ব্লগ শুরু করুনঃ 

আপনি যদি লেখার প্রতি আগ্রহী হন এবং নিজের চিন্তা, আবেগ বা শেখার কথা মানুষের সাথে ভাগ করতে চান তবে ব্লগিং আপনার জন্য দুর্দান্ত বিকল্প হতে পারে। ব্লগ থেকে অনলাইনে ইনকাম করার জন্য আপনাকে প্রযুক্তিতে বা কম্পিউটারে এক্সপার্ট হতে হবে না। ব্লগিং শুরু করা সহজ একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং দরকার হবে। তারপর ওয়ার্ডপ্রেস সেটআপ করে লেখালেখি শুরু করে দিন, যে লেখায় মানুষ উপকৃত হয়, পর্যাপ্ত তথ্য দিয়ে ভরপুর করুন আপনার সাইট। এভাবে আপনি ২-৩ মাসের মধ্যে উপার্জন শুরু করতে পারেন। এটি নির্ভর করে আপনি কতটা সময়, কঠোর পরিশ্রম এবং উৎসর্গ করতে পারেন।

ইউটিউবে চ্যানেলে তৈরি করে ভিডিও বানানঃ 

আপনি যে ইউটিউব ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখে থাকেন। ওটাই ইনকামের মূল উৎস। আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে , ভিডিওর উপরে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করতে পারেন।ভিডিওটি আপনার হওয়া দরকার অর্থাৎ নিজের হাতে ভিডিও করা। আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে পারেন এবং তারপত অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে ইনকাম শুরু করতে পারেন।

 

অনলাইনে আয় ২০২০, অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায়, অনলাইনে আয়ের সহজ পদ্ধতি,অনলাইনে টাকা আয়, ঘরে বসে আয় করুন, ঘরে বসে আয়, বাসায় বসে আয় করুন, ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই, ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাই, ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ ফ্রিতে, ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গড়তে চাই, ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো? ব্লগ তৈরি করে আয়, ব্লগ করে আয়, ব্লগিং করে ইনকাম, ইউটিউবে আয় করার নিয়ম, ইউটিউবে আয় হয় কিভাবে, এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবো, এফিলিয়েট মার্কেটিং করে  আয়, এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ঘরে বসে আয়,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *