অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা ২০২১

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় এমন ব্যবসা। ব্যবসা শুরু করতে যে অনেক টাকা লাগে তেমন নয়। আপনি অল্প টাকা দিয়ে  বিভিন্ন ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এজন্য আপনার একান্ত মনোবোল আর প্রচ্ষ্টোই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তবে শুরুর ক্ষেত্রে ব্যবসার ধারণা নিয়ে আপনাকে কিছুটা বিভ্রান্তীতে পরতে হতে হবে। কারণ আপনি যে ধরণের ব্যবসা শুরুর করবেন তার আগে পরিকল্পনা করে নেওয়াটা খুবই জরুরি বিষয়। সঠিক পরিকল্পনাই কোন ব্যবসায় সাফল্য অর্জন এর পূর্বশর্ত।চকলেট ব্যবসার ক্ষেত্রে তাই পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে গেলে সাফল্য অবশ্যই পাবেন।

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা

গাছ নার্সারি ব্যবসা

আজকাল অনেকেই বাড়িতে গাছ রাখতে পছন্দ করেন, ফুলের গাছ থেকে শুরু করে ছোট শোভাময় গাছ, সবুজ পরিবেশ যেমন পরিবেশকে সতেজ রাখে, তেমনি সবুজ জিনিস মানুষের মনকে নতুন ভাবে উদ্দীপ্ত করে। তাই চারা ব্যবসা এখন একটি সুন্দর অভিভাবক ব্যবসা। আর বিচক্ষণতার সাথে ব্যবসা করলে চারা থেকে ভালো আয় করা সম্ভব। কিন্তু ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনার কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস এবং একটি পরিকল্পনা দরকার। তবে এ ব্যবসায় অনেক সতর্কতা প্রয়োজন। যেহেতু গাছ একটি নমনীয় জিনিস তাই তাদের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু এটা নিয়ে চিন্তা না করে, কঠোর পরিশ্রম এবং সৎ প্রচেষ্টা মানুষকে সাফল্যের শিখরে পৌঁছাতে সাহায্য করে, এই নীতিটি মাথায় রেখে আপনার ব্যবসা শুরু করুন। আপনার সাফল্য নিশ্চিতভাবে আপনার কাছে ফিরে আসবে।

বিউটিশিয়ান ব্যবসা

সৌন্দর্যের বিষয়টি প্রাচীনকাল থেকেই চলে আসছে  এবং প্রত্যেকেই নিজেকে সাজিয়ে রাখতে পছন্দ করে। সময়ের সাথে সাথে সবকিছু বদলে যাচ্ছে, প্রসাধনীতেও রয়েছে নতুনত্বের ছোঁয়া। ঘরে বসেই সৌন্দর্য চর্চা করা যায় কিন্তু বিউটি পার্লারে রূপচর্চায় এনেছে অনেক নতুন পদ্ধতি যা সবার নজর কেড়েছে, সেই সঙ্গে হচ্ছে ফ্যাশনও।

আপনি সাজতে পছন্দ করেন এবং আপনি একজন গৃহিণী। তাই নিজেকে সাজানোর পাশাপাশি অন্যকে সাজিয়ে অর্থ উপার্জন করে নিজের সংসার চালাতে পারেন। এমনকি অনেক মেয়ে পার্লার ব্যবসা চালিয়ে নিজেদের সংসার চালাচ্ছে। এই ব্যবসা শুরু করতে আপনাকে অনেক টাকা খরচ করতে হবে না। বিউটি পার্লার সাজাতে একটু টাকা খরচ করতে হবে। তবে আপনি চাইলে আপনার বাড়িতে অল্প জায়গা নিয়ে বিউটি পার্লারের ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

বেকারি ব্যবসা

কাজের ফাঁকে সকালের নাস্তা, বিকেলে চা পার্টিতে পাউরুটি, বিস্কুট বা কেকের কোনো বিকল্প নেই। অতিথি আপ্যায়নের ক্ষেত্রেও এগুলো বাধ্যতামূলক হয়ে পড়েছে। এবং আপনির একটি জন্মদিন কেক ছাড়া কোনো প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ইভেন্ট চিন্তা করতে পারেন না। যেখানে এই খাবার গুলি তৈরি করা হয় তাকে বেকারি বলা হয়। বেকারি কোম্পানি গুলো সম্প্রতি তাদের পণ্যে ফাস্ট ফুড, মিষ্টি ও বিভিন্ন ধরনের খাবার যোগ করেছে। এসব পণ্যের দাম সব ধরনের মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকায় এসব পণ্যের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। উৎপাদন খরচ কম হওয়ায় স্বল্প পুঁজিতে এই ব্যবসা শুরু করা যায়। এতে কিছু মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া ভালো লাভোবান হতে পারেন অপ্ল পুজিতে।

কেক বানানোর ব্যবসা

ঘরে বসে কেক বানিয়ে বিক্রি করে আজকাল একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়া খুব সহজ। কারণ বর্তমান বাজারে কেকের চাহিদা অনেক বেশি। এছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মানুষ এখন বিভিন্ন দোকান থেকে না কিনে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে অর্ডার করে। বিভিন্ন উপলক্ষ্যে তারা কিনে নেয়। ঘরে বসে কেক বানিয়ে বিভিন্ন উপায়ে বিক্রি করে আপনিও হতে পারেন একজন সফল উদ্যোক্তা।

কারণ এই ব্যবসাটি বর্তমান সময়ে ভালো ফলাফল সহ একটি সফল ট্রেন্ডিং ব্যবসা। আপনি নিজের খরচে এবং আর্থিকভাবে ঘরে তৈরি কেকও তৈরি করতে পারেন। আজকাল অনেক ক্ষেত্রেই মানুষ একটু ইউনিক কেক পছন্দ করে। ফলস্বরূপ, আমরা যে দোকান থেকে কিনি তাদের অনেকের ডিজাইন আছে বা অনেক বেশি স্বাভাবিক এবং নিয়মিত। তবে এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে অর্ডার করে কেক তৈরি করলে সেক্ষেত্রে ডিজাইন ও স্বাদ সম্পূর্ণ ভিন্ন হয়। যা সবার কাছে অনেক পছন্দের। এভাবে আপনি একজন ভালো ব্যবসায়ি হতে পারবেন।

অনলাইনে হাতে তৈরি পণ্য বিক্রয়

আপনি বেকার সময় নষ্ট না করে বিশাল অনলাইন বাজারে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করুণ। এই উদ্যোগ একজন নারীর স্বনির্ভরতার ক্ষেত্রে দারুণ ভূমিকা রাখতে পারে, তারা ঘরে বসে বিভিন্ন উপকরণ তৈরি করে। এরপর এসব পণ্যের ছবি ও বর্ণনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। আগ্রহী ক্রেতারা যোগাযোগ করে পণ্যটি কিনবে। এভাবেই ঘরে বসে রোজগার করছেন অনেক তরুণী। কেও বানান গয়না, কিছু ঘর সাজানোর আইটেম ও সৌন্দর্য পণ্য। কেউ বানায় চুলের ফিতা, চুড়ি, ক্লিপ, হিজাব, স্কার্ফ ইত্যাদি। আপনিও এগুলি বানিয়ে অনলাইন বাজারে বিক্রয় করে ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

বাঁশ দিয়ে আসবাবপত্র তৈরি ব্যবসা

কুটির শিল্প নতুন উদ্যোক্তাদের মাঝে দিন দিন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে । এমন একটি কুটির শিল্প হচ্ছে বাঁশ দিয়ে আসবাবপত্র তৈরি । নতুন ব্যবসার আইডিয়া খুঁজছেন তাহলে বাঁশ দিয়ে আসবাবপত্র তৈরি এর ব্যবসা হতে পারে আপনার জন্য একটি ভাল অপশন।

মানুষ একসঙ্গে বাঁশের আসবাবপত্র ব্যবহার করে এবং এগুলি ঘর সাজাতে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া এর চাহিদা এখন অনেক। বাঁশ দিয়ে আসবাবপত্র তৈরির ব্যবসা করতে হলে বাঁশের পণ্য তৈরির প্রশিক্ষণ নিতে হবে। সরকারিভাবে কুটির শিল্প প্রশিক্ষণ অনেক বেশি সক্রিয়। এসব বিবেচনায় বাঁশের ফার্নিচারের দোকান স্থাপন লাভজনক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ফলের জুসের ব্যবসা

গরমের ক্লান্তি দূর করতে জুস বা শরবত বেশ পুরনো। অতিথি আপ্যায়ন এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে জুস ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। বাজারে বিভিন্ন ধরনের পানীয় পাওয়া গেলেও ফল থেকে তৈরি নগদ তাজা জুসের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। গরমে এই জুসের ব্যাপক চাহিদার কথা মাথায় রেখে জুস উৎপাদনের ব্যবসাও শুরু করতে পারেন। এই ব্যবসা সব জায়গায় চলবে না। বিশেষ করে যদি তা মসজিদ, মাদ্রাসা বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের সামনে দেওয়া হয় বা বাসস্ট্যান্ড, স্টেশনের সামনে ট্রেন খুব ভালো চলবে। আপনি বিভিন্ন ধরণের ফলের রস, মিশ্র ফলের রস, গোলাপের রস, লেবুর রস ইত্যাদি দিয়ে ভাল ব্যবসা করতে পারেন। এভাব আপনি অল্প পুজিতে ভালো ব্যবসায়ী হতে পারবেন।

কাঠের শোপিস তৈরি

নতুন উদ্যোক্তাদের কাছে কাঠের শোপিস তৈরি ব্যবসা হতে পারে একটি ভালো আইডিয়া। আমাদের দেশে ঘর সাজানোর জন্য কাঠের শোপিস খুবই জনপ্রিয়। সৌখিন মানুষরা তাদের ঘর সাজানোর জন্য এই সমস্ত শোপিস গুলো ব্যবহার করেন। আর এটি হতে পারে আপনার জন্য একটি ভালো ব্যবসার অপশন। এই ব্যবসা করে আপনি  দ্রুত স্বালম্বী হতে পারেন।

 শুটকির ব্যবসা

দেশে বিদেশে শুঁটকির ভালো বাজার তৈরি হয়েছে। প্রায় সব বাজারেই শুঁটকি বিক্রি হয়। এতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ডি, যা হাড়, দাঁত ও নখ মজবুত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়া তাজা মাছে শুঁটকি মাছের চেয়ে বেশি আমিষ থাকে। তাই গুরুত্ব বিবেচনা করে আপনি এই ব্যবসা শু্রু করতে পারেন এবং অল্প দিনের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হতে পারেন।

Leave a Comment