ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়মাবলী,নিয়ত ও দোয়া বাংলাতে জানুন।

আপনারা আমাদের এই পোষ্টে এসেছেন ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়মাবলী,নিয়ত ও দোয়া বাংলাতে জানার জন্য। আশা করি আপনাদের সঠিক তথ্য দিয়ে উপকৃত করব ইনশাল্লাহ। ঈদুল ফিতরের নামাজ হচ্ছে একটি বিশেষ নামাজ, যা মুসলমানরা মূলত ধর্মীয় উৎসবের দিন। সাধারণত এটি বরাদ্দকৃত কোন খোলা জায়গা (মুসল্লা বা ঈদগাহ) অথবা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। মুসলমান গণ বৃহৎ আকারে একত্রিত হয়ে এই ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করে থাকে।

ঈদের নামাজের গুরুত্ব নিয়ে ইসলামী চিন্তাবিদগণ ভিন্ন মত প্রকাশ করেছেন। হানাফী মাযহাবের মতে ঈদের নামাজ ওয়াজিব, মালিকি ও শাফেয়ী মাযহাব অনুসারে সুন্নাতে মুয়াক্কাদাহ এবং হাম্ববলী মাযহাব অনুসারে ঈদের নামাজ ফরজ। কোনো কোনো ইসলামী পণ্ডিতের মতে ঈদের নামাজ ফরজে আইন এবং কোনো কোনো ইসলামী পণ্ডিতের মতে ঈদের নামাজ ফরজে কেফায়া। কিন্তু কারো কারো মতে ঈদের দুই রাকায়াত নামাজ নফল।

ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়মাবলী

ঈদুল ফিতরের নামাজ জামাতের সঙ্গে আদায় করতে হয়। জুমআ নামাজ অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য যেসব শর্ত প্রয়োজন, ঈদুল ফিতরের নামাজে আদায় করার জন্যও একই শর্ত প্রযোজ্য। ঈদের নামাজ আদায় করতে হলেও অবশ্যই জামাআতে ঈদের নামাজ আদায় করতে হবে।ঈদের নামাজ সাধারণত খোলা মাঠে বা ঈদগাহে পড়া হয়। কারন ঈদের নামাজ ছাদবিহীন খোলা জায়গায় আদায় করা সুন্নাত।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম খোলা জায়গায় ঈদের নামাজ আদায় করতেন। যদি এমন স্থানের অনুপস্থিতিতে বা জরুরি প্রয়োজনে মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করা যাবে। কিন্তু জামাআত বিহীন ঈদের নামাজ আদায় করা যাবেনা। জামাত সহ ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য ইমাম ছাড়া ন্যূনতম তিনজন মুসল্লি হতে হবে।

 ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়মাবলীতর নামাজের বাংলা নিয়ত

ঈদুল ফিতরের নামাজের নিয়ত:-  ঈদুল ফিতরের/ঈদের দুই রাকাআত ওয়াজিব নামাজ অতিরিক্ত ৬ তাকবিরের সঙ্গে এই ইমামের পেছনে কেবলামুখী হয়ে আল্লাহর জন্য আদায় করছি আল্লাহু আকবার।

আরবি নিয়ত:- নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তায়ালা রাকয়াতা সালাতি ঈদিল ফিতর, মায়া ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তায়ালা ইকতাদাইতু বিহাযাল ইমাম, মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

ঈদুল ফিতরের নামাজের দোয়া

প্রথম রাকাআত
১. তাকবিরে তাহরিমা
ঈদের নামাজে নিয়ত করে তাকবিরে তাহরিমা ‘আল্লাহু আকবার’ বলে হাত বাঁধা।
২. ছানা পড়া
‘সুবহানাকা আল্লাহুম্মা ওয়া বিহামদিকা ওয়া তাবারাকাসমুকা ওয়াতাআলা যাদ্দুকা ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা।
৩. অতিরক্তি ৩ তাকবির দেয়া।
এক তাকবির থেকে আরেক তাকবিরের মধ্যে তিন তাসবিহ পরিমাণ সময় বিরত থাকা। প্রথম ও দ্বিতীয় তাকবিরে উভয় হাত উঠিয়ে তা ছেড়ে দেয়া এবং তৃতীয় তাকবির দিয়ে উভয় হাত বেধেঁ নেয়া।
৪. আউজুবিল্লাহ-বিসমিল্লাহ পড়া
৫. সুরা ফাতেহা পড়া
৬. সুরা মিলানো। অতপর নিয়মিত নামাজের মতো রুকু ও সেজদার মাধ্যমে প্রথম রাকাআত শেষ করা।

দ্বিতীয় রাকাআত
১. বিসমিল্লাহ পড়া
২. সুরা ফাতেহা পড়া
৩. সুরা মিলানো।
৪. সুরা মিলানোর পর অতিরিক্ত ৩ তাকবির দেয়া। প্রথম রাকাআতের মতো দুই তাকবিরে উভয় হাত কাধ বরাবর উঠিয়ে ছেড়ে দেয়া অতপর তৃতীয় তাকবির দিয়ে হাত বাঁধা।
৫. তারপর রুকুর তাকবির দিয়ে রুকুতে যাওয়া।
৬. সেজদা আদায় করে তাশাহহুদ, দরূদ, দোয়া মাসুরা পড়ে সালাম ফেরানোর মাধ্যমে নামাজ শেষ করা।শ
৭.তারপর খুতবা তেলোয়াত করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.