উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১ প্রকাশ । বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বিউইউ) ২য় তম বর্ষে প্রবেশ করেছে। বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়টি গ্রেট ন্যাশনাল অ্যাসেমব্লিতে একটি আইন পাস করে ২১ শে অক্টোবর, ১৯৯২ সালে যাত্রা শুরু করে। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বাউবি টেকসই এবং প্রযুক্তি ভিত্তিক শিক্ষার নতুন উদ্যোগে কাজ শুরু করেছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়টি সারা দেশে কয়েক মিলিয়ন শিক্ষার্থীর জন্য পড়াশুনার পাশাপাশি কাজের পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে দক্ষতা বাড়ানোর সুযোগ করে দিয়েছে। বাউবি থেকে ২২ লক্ষেরও বেশি শিক্ষার্থী তাদের আকাঙ্ক্ষিত শিক্ষা শেষ করেছেন। এক কথায়, বাউবির শিক্ষা ও উন্নয়নে বিভিন্ন স্তরের মানুষকে সম্পৃক্ত করে টেকসই উন্নয়নের জন্য একটি সংস্থা হিসাবে বাংলাদেশে বিকল্প নেই।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বদলেছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি এখন সম্পূর্ণ প্রযুক্তি বান্ধব। অনলাইন ভর্তি, নিবন্ধন, ফি প্রদান ও পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাব্যবস্থার গতি বেড়েছে।

অনার্স ও মাস্টার্স লেভেল সহ অর্ধশতাধিক শিক্ষা কার্যক্রম বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো নয়, অনার্স এবং মাস্টার্স স্তরের শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন এখানে ক্লাস করতে হবে না। শিক্ষার্থীরা তাদের নিজস্ব পাঠ পড়ছে। এছাড়াও টিউটোরিয়াল, রেডিও, টেলিভিশন, ইন্টারনেট, ইউটিউব সহ বিভিন্ন মাধ্যমে পাঠ গ্রহণের সুযোগ রয়েছে। শিক্ষক সবসময় একজন পরামর্শদাতা হিসাবে আমার পাশে থাকেন। অ্যাসাইনমেন্টস, থিসিসও প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করছে। অনার্স এবং মাস্টার্স প্রোগ্রামগুলিতে শিক্ষকরা আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলিতে নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন। কৃষি শিক্ষায় একাধিক বিষয়ে এমএস প্রোগ্রাম সম্প্রতি চালু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে গাজীপুর ক্যাম্পাসে দুটি আধুনিক পরীক্ষাগার স্থাপন করা হয়েছে।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ওপেন স্কুল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

 

এমফিল ভর্তির যোগ্যতা

যে কোনো বিষয়ে স্নাতকোত্তর বা স্নাতক (সম্মান) পর্যায়ে অন্তত দুই টি প্রথম বিভাগ / শ্রেণী/জিপিএস/ সিজিপিএ পদ্ধতিতে ৪ এর মধ্যে ৩ থাকতে হবে। ৫০% নম্বর (জপিএ/সিজিপিএ পদ্ধতিতে ৪এর মধ্যে ৩) সহ তিন/চার বছরের স্নাতক সম্মান এবং এক বছর স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে কমপক্ষে ২য় বিভাগ অথবা জিপিএ ৫এর মধ্যে ৪ থাকতে হবে ,অথাবা স্নাতকোওর ডিগ্রি সহ কোনো শিক্ষা বা গবেষণা প্রতিষ্ঠানে দুই বছর চাকরির আভিজ্ঞতা সহ মানসম্পন্ন জার্নালে একটি একক প্রকাশনা থাকতে হবে এবং শিক্ষা জীবনের সকল পর্যায়ে ন্যূনতম ২য় বিভাগ অথবা জিপিএ/ সিজিপিএ পদ্ধতিতে ৪ এর মধ্যে ৩ অথবা ৫ এর মধ্যে ৪ থাকতে হবে ।

আবেদনে সময় সীমাঃ ০৩/০২/২০২১

 

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তির শর্তবলি

শর্তবলিঃ

প্রোগ্রাম সম্পন্ন করার বিস্থারিত শর্তাবলির বিবরন ভর্তির সময় এমফিল ও পিএইচডি নিতিমালায় পাওয়া যাবে ।

আগ্রহি প্রার্থিকে জনতা ব্যাংকের নির্ধারিত শাখা সমূহে এমফিল প্রোগ্রামের জন্য ৫০০/- টাকা এবং পিএইচডি প্রোগ্রামের জন্য ১০০০/- টাকা জমা দিতে হবে । বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) ওয়েবসাইট ( www.bou.edu.bd ) হতে আবেদন পত্র সংগ্রহ ও পূরণ পূর্বক নম্বর পত্র সনদ পত্র সমূহের সত্যায়িত কপি,দুই কপি ছবি , প্রকাশনার ছবি , প্রকাশনার কপি এবং দুই সেট গবেষণা প্রস্তাব সংশ্লিষ্ট স্কুলের অফিসে আগামী ০৩/০২/২০২১ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে ।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তির নিয়ম-কানুন

পরীক্ষার ও গবেষণার নিয়ম-কানুনঃ

এমফিল ডিগ্রি অর্জনকারী শিক্ষার্থীদের প্রথম বর্ষের শেষে ২০০ নম্বর এবং লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে ১০০ মিক্সের মৌখিক পরীক্ষা। প্রতিটি কোর্সে কোর্স শিক্ষকসহ ২ জন পেপার সেটার এবং পরীক্ষার্থী থাকবেন। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় পাসের নম্বর ৫০%। আপনি যদি পাস নম্বর পেতে ব্যর্থ হন বা পরীক্ষায় অংশ না নেন, আপনি পরবর্তী শিক্ষাবর্ষে পুনরায় ভর্তি হতে পারবেন এবং দ্বিতীয়বারের মতো পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন। ভালো ফলাফল সহ এমফিল কোর্সের প্রথম বর্ষ সম্পন্ন শিক্ষার্থীদের জন্য বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক এবং একাডেমিক কমিটির পরামর্শে এই কোর্স পিএইচডি প্রোগ্রামে রূপান্তর করা যেতে পারে।

কোনও প্রার্থী যদি কোনও বিশ্ববিদ্যালয় বা কোনও প্রতিষ্ঠানে কর্মরত থাকেন তবে পিএইচডি চাকরিতে যোগদানের সময় তার কমপক্ষে 1 বছরের ছুটি নেওয়া উচিত। তবে বিভাগের একাডেমিক কমিটির সুপারিশে একাডেমিক কাউন্সিলের মাধ্যমে এই শর্তটি শিথিল করা যায়।

একজন গবেষক হিসাবে একজন পিএইচডি পণ্ডিতকে তত্ত্বাবধায়কের তত্ত্বাবধানে বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা কাজ প্রদর্শন এবং সুপারভাইজারের কাছে ছয় মাসের কাজের প্রতিবেদন জমা দেওয়ার প্রয়োজন হয়। পিএইচডি ডিগ্রির জন্য নিবন্ধন চার বছরের জন্য। তবে এটি আরও চার বছরের জন্য পুনর্নবীকরণ করা যেতে পারে। পিএইচডি পণ্ডিতকে প্রতি বছর বিভাগে তার গবেষণার একটি বিষয়ে কমপক্ষে একটি সেমিনারের আয়োজন করতে হয়। গবেষণার যে কোনও পরিবর্তনের পূর্বশর্ত হ’ল বিভাগের একাডেমিক কমিটির সুপারিশ।


উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি ,উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তির যোগ্যতা ,উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ,উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ,উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ,এমফিল ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ,

Leave a Comment