কিভাবে ওজন কমানো যায় ? সমাধান দেখুন। -পর্ব ০৩

ByToufiq Hassan

Apr 11, 2020 , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,
ওজন কমানোর উপায়

ছিপছিপে মেদহীন সুন্দর শরীর সবার প্রিয়। তাই সবাই চায় নিজের সুগঠিত, সুন্দর ও কার্যক্ষম শরীর।কিন্তু এটা অতটা সহজ কাজ নয়। কিভাবে ওজন কমানো যায়, এই প্রশ্ন সব সময়ই ঘুরপাক ঝায় যারা ওজন কমাতে চান।  পরিমিত খাবার গ্রহন ও শরীর চর্চাই পারে সুস্থ স্বাভাবিক ওজন নিয়ে মানুষকে বাচাতে পারে ।অনেকেই চায়  অল্প সময়ের মধ্যে ওজন কমাতে চান ।অল্প সময়ে ওজন কমাতে চাইলে অনেক কানুন নিয়ম মেনে চলতে হয়। খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে জীবনযাপনের বেশ কিছু ক্ষেত্রে  অবশ্যই  পরিবর্তন আনতে হবে। মেনে চলতে হবে কঠিন কিছু নিয়ম। । ওজন কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ধীরে ধীরে স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন কমানো। আপনি কখনই একবারে অধিক ওজন কমাএ পারবেন না বা সেটা ঠিক ও না ।দ্রুত ওজন কমানোর উপায় আছে, কিছু টিপস ও বিজ্ঞান রয়েছে  । কিন্তু তাদের বেশিরভাগই আপনাকে করে তুলবে ক্ষুধার্ত এবং অসুন্তষ্ট।তাই এমন কিছু নিয়ম অনুসরন করতে হবে যেটা আপনাকে ক্ষুধার্ত বা অসুন্তষ্ট করবে না কিন্তু আপনার ওজন হ্রাস পাবে।

       কিভাবে ওজন কমানো যায়

 কিভাবে ওজন কমানো যায়

 

ওজন কমানোর তিনটি কার্যকরী উপায়

১. ওজন কমানোর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ওজন বৃদ্ধি পায় এমন খাবার খাওয়া খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দেওয়া । বিশেষ করে চিনি এবং অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবার।  ওজন কমাতে চাইলে প্রথমে  আপনাকে  ক্ষুধার মাত্রা নিচে নামিয়ে আনতে হবে । প্রথমে আপনার  শরীরে জমে থাকা চর্বি কমাতে । চর্বি কমানোর সবচেয়ে  ভালো উপায় হলো পানি পান করা। বিশেষ করে হালকা গরম পানি। বেশি করে পানি খাওয়ার ফলে আপনার কিডনি ভালো থাকবে। এটি পেট মোটা হওয়া কমাবে।সবচেয়ে প্রধান কাজ হলো  শর্করাজাতীয় খাবার এবং স্টেক খাওয়া কমিয়ে দিতে হবে।

২. খাদ্যাভ্যাসে কিছু পরিবর্তন আনতে হবে।খাদ্যতালিকায় এমন খাবার যুক্ত করুন যাতে আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে।  খাবারের তালিকায় একটি প্রোটিনযুক্ত খাবার, একটি চর্বিযুক্ত এবং সবুজ শাকসবজি রাখতে হবে । পুষ্টির এ উপকরণগুলো রেখে প্রতিদিন ২০ থেকে ৫০ গ্রাম রাখুন। আপনার খাবারের তালিকার প্রোটিনের উৎসগুলোও রাখুন। এগুলো হলো গরু ও মুরগির মাংস, চিংড়ি, সামুদ্রিক মাছ এবং ডিম। কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে  ওজন কমানোর সময় প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন খাওয়া উচিত না।

উচ্চ প্রোটিন আছে এমন ৬০ শতাংশ খাবার বাদ দিলে আপনার ওজন সহজে কমে যাবে । রাতে ঘুমানোর আগে কম ক্যালরিযুক্ত খাবার খেতে হবে। এ পদ্ধতি অবলম্বন করে ওজন কমালেও একটি জিনিস আপনাকে মানতে হবে। প্রোটিন হলো পুষ্টির রাজা। ফুলকপি, টমেটো, পাতাকপি, লেটুস পাতা, শসা ইত্যাদি কম কার্বনযুক্ত সবজি। এ উপকরণগুলো দিয়ে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণ খাবার খেলেও ওজন বাড়বে না। মাংস, মাছ, সবজি, ভিটামিন এবং খনিজ খেলে আপনার শরীর ভালো থাকবে। প্রতিদিন আপনি ৫ থেকে ৬ বার খাবার খান।  সবচেয়ে বড় কথা হলো, প্রতিদিন আপনার খাবারের তালিকায় পরিপূর্ণ পুষ্টি উপকরণ রাখুন।

৩. ওজন কমানোর  কার্যকারী  উপায় হচ্ছে  ব্যায়াম । সপ্তাহে আপনাকে দুই থেকে তিনবার জিমে যেতে হবে। আপনাকে ওজন কমানোর জন্য উপযুক্ত ব্যায়ামগুলোও করতে হবে।  জিমে নতুন যাওয়া শুরু করলে প্রথম দিনেই কষ্টকর ব্যায়াম করা উচিত নয়। এতে উল্টো ফল হতে পারে। তাই ব্যায়াম করার আগে প্রশিক্ষকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন। তাহলে আপনি যার জন্য ব্যায়াম করবেন সেই ফলটা পাবেন।

আবার অনেকে রাতের বেলায় না খেয়ে ওজন কমানোর চেষ্টা করে যেটা সবচেয়ে ভুল সিদ্ধান্ত ।রাতের বেলায় না খেয়ে ঘুমালে শরীরের অনেক ক্ষতি হয় । রাতের বেলা খাবার না খেয়ে থাকলে লাভের থেকে ক্ষতির পরিমাণই বেশী। ওজন তো কমবেই না বরং স্বাস্থ্যহানি ঘটবে। তাই আজকে আপনাদের জন্য রইল চটজলদি ওজন কমাতে সহায়ক রাতের বেলার ৩ টি ডায়েট প্ল্যান। রাতে বেলা না খেয়ে থাকার চেয়ে একটি ডায়েট চার্ট অনুসরণ করুন। দ্রুত ওজন কমাতে পারবেন।

ডায়েট প্ল্যান-১: যারা ভাত জাতীয় খাবার পছন্দ করেন

অনেকেই আছেন যারা ভাবেন ভাত খেয়ে ওজন কমানো যায় না। কথাটি সম্পূর্ণ ভুল। পরিমিত পরিমাণ ভাত ওজন কমাতে বেশ সহায়ক। নিয়ম করে রাতের বেলা এই চার্টটি অনুসরণ করেই দেখুন ওজন কমে কিনা! •১ কাপ ভাতঃ ভাতের পরিমাণ ১ কাপই হতে হবে। কোনো ভাবেই এর চাইতে বেশী নয়। •১ টুকরো মাছ/ মাংসঃ মাঝারি আকৃতির এক টুকরো মাছ/ মাংস শরীরের আমিষের চাহিদা পূরণ করবে। •১ কাপ সবজিঃ কম তেলে বা তেল বিহীন সবজিভাজি ফ্যাট অনেকাংশে কমায়। ১ কাপ পরিমাণ সবজি অবশ্যই ডায়েট চার্টে রাখবেন। সব চাইতে ভালো হয় কাঁচা সবজির সালাদ রাখলে। •১ কাপ ডালঃ ডাল ফ্যাট কাটতে সহায়তা করে। পাশাপাশি পুষ্টি যোগায় শরীরে। •১ টি ফল ও দইঃ খাবার শেষে ১ টি কলা বা ১ টি আপেল কিংবা ১ টি কমলা খাবেন। এই ফলগুলো ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। আর ১/৪ কাপ টক দই। এটা খাবার হজমে সাহায্য করবে।

ডায়েট প্ল্যান-২: যারা রুটি জাতীয় খাবার পছন্দ করেন

অনেকে রাতে ভাত খেতে পারেন না বা খেতে চান না। তাদের জন্য এই ডায়েট চার্ট। অনুসরন করে দেখুন, ওজন কমবে দ্রুত। •২/৩ টি পাতলা আটার রুটিঃ রুটিটি অবশ্যই আটার হতে হবে। লাল আটা হলে ভালো হয়। ময়দা ও পাউরুটি হলে চলবে না। কারন ময়দার রুটি ও পাউরুটি খেলে ওজন বাড়ে •১/২ কাপ সবজিঃ কম তেলে বা তেল বিহীন সবজিভাজি আটার রুটির সাথে খেতে পারেন। •১/২ টি ডিমের সাদা অংশঃ ডিম প্রোটিনের খুব ভালো একটি উৎস। ডিমের সাদা অংশে ক্যালোরি অনেক কম থাকে। তাই ১/২ টি ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন। কিংবা এক টুকরো মাছ বা মাংস যা আপনার পছন্দ। •১/২ টি ফলঃ কলা, আপেল কিংবা কমলা এই তিনটি ফলের যে কোন ১ টি খাবেন। দই খেতে চাইলে ২/৩ টেবিল চামচ খেতে পারেন।

ডায়েট প্ল্যান-৩: সবচাইতে দ্রুত ওজন কমানোর জন্য

এই ডায়েট প্ল্যানটি যে কেউ অনুসরণ করতে পারেন খুব দ্রুত ওজন কমাতে চাইলে। দ্রুত ওজন কমাতে খুবই কার্যকরী একটি চার্ট। •আধা কাপ হাই ফাইবার কর্ণফ্লেক্সঃ হাই ফাইবার কর্ণফ্লেক্স ওজন কমাতে সাহায্য করে। তবে কর্ণফ্লেক্স অবশ্যই চিনি ছাড়া হতে হবে। যদি চিনি ছাড়া খেতে না পারেন তবে মধু ব্যবহার করতে পারেন। •১ কাপ মাখন ছাড়া দুধঃ মাখন ছাড়া দুধে ক্যালোরির পরিমাণ অনেক কম থাকে। তাই ডায়েট চার্টে ১ কাপ মাখন ছাড়া দুধ অবশ্যই রাখবেন। •ফলঃ এই ডায়েট চার্টে ফলের গুরুত্ব অনেক বেশী। বেশী করে ফল খাবেন রাতে। বিশেষ করে কলা ও সবুজ আপেল। এরা ফ্যাট কমাতে অনেক সহায়তা করে। কর্ণফ্লেক্স,দুধ ও ফল এক সাথে মিশিয়ে খেয়ে নিন। দুধটা ঠাণ্ডা না খেয়ে গরম খাবেন। সাথে খেতে পারেন এক মুঠো কাঠ বাদাম।

সব সময়ের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুনঃ ? The Next Web BD


ওজন কমানোর উপায়,ওজন কমানোর উপায় ডায়েট চার্ট,ওজন কমানোর উপায় লেবু,ওজন কমানোর উপায় ভিডিও,ওজন কমানোর উপায় সমূহ,ওজন কমানোর উপায় ব্যায়াম,ojon komanor upay,ওজন কমানোর উপায় কি,ওজন কমানোর অবিশ্বাস্স উপায়,শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমানোর উপায়,অল্প সময়ে ওজন কমানোর উপায়,অতিরিক্ত ওজন কমানোর সহজ উপায়,ওজন কমানোর সেরা উপায়,মেদ ও ওজন কমানোর উপায়,চিকন ও ওজন কমানোর উপায় ,আদা খেয়ে ওজন কমানোর উপায়,আপেল ভিনেগার দিয়ে ওজন কমানোর উপায়,প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন কমানোর উপায় ,এক মাসে ওজন কমানোর উপায় ,এক দিনে ওজন কমানোর উপায় ,শরীরের ওজন কমানোর উপায় কি ,ওজন কমানোর জন্য কি উপায় ,ওজন কমানোর কার্যকরী উপায় ,দ্রুত ওজন কমানোর কার্যকরী উপায় ,www.ওজন কমানোর উপায়.com,কোমরের ওজন কমানোর উপায় ,
খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,খুব দ্রুত ওজন কমানোর উপায় ,ভাত খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,লেবু খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,পানি খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,ডিম খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,জিরা খেয়ে ওজন কমানোর উপায় ,গর্ভাবস্থায় ওজন কমানোর উপায় ,দ্রুত ওজন কমানোর ঘরোয়া উপায় ,ওজন কমানোর সহজ ঘরোয়া উপায় ,শরীরের ওজন কমানোর ঘরোয়া উপায় ,ঘরে বসে ওজন কমানোর উপায় ,ঘরোয়া পদ্ধতিতে ওজন কমানোর উপায় ,ওজন কমানোর ডায়েট চাট ,
ছেলেদের ওজন কমানোর উপায় ,ডায়েট ছাড়া ওজন কমানোর উপায়ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায় ,
ওজন কমানোর জন্য উপায় ,জিরা দিয়ে ওজন কমানোর উপায় ,টক দই দিয়ে ওজন কমানোর উপায় ,ডেলিভারির পর ওজন কমানোর উপায় ,তাড়াতাড়ি ওজন কমানোর উপায় ,থাইরয়েড রোগীর ওজন কমানোর উপায় ,রোজা থেকে ওজন কমানোর উপায় ,ওজন কমানোর দ্রুত উপায় ,দেহের ওজন কমানোর উপায় ,দূত ওজন কমানোর উপায় ,দশ দিনে ওজন কমানোর উপায় ,নিতম্বের ওজন কমানোর উপায় ,ওজন কমানোর প্রাকৃতিক উপায় ,পায়ের ওজন কমানোর উপায় ,পুরুষের ওজন কমানোর উপায় ,পেটের ওজন কমানোর উপায় ,প্রসবের পর ওজন কমানোর উপায় ,বাচ্চাদের ওজন কমানোর উপায় ,বাচ্চার ওজন কমানোর উপায়,শরীরের বাড়তি ওজন কমানোর উপায় ,ক্রিকেট ব্যাটের ওজন কমানোর উপায় ,ওজন কমানোর ভালো উপায় ,
ওজন কমানোর সহজ উপায় ভিডিও ,মহিলাদের ওজন কমানোর উপায় ,মুখের ওজন কমানোর উপায় ,১ মাসে ওজন কমানোর উপায় ,রোজার মাসে ওজন কমানোর উপায় ,রমজান মাসে ওজন কমানোর উপায় ,রোজায় ওজন কমানোর উপায় ,শিশুর ওজন কমানোর উপায় ,শীতে ওজন কমানোর উপায় ,বিডি নেক্সট ওয়েব, bd next web,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *