অনলাইন ইনকামক্যারিয়ার গাইডলাইন

Upwork এ কি কি কাজ পাওয়া যায়? আপওয়ার্ক টিপস ০১

আপওয়ার্কে একাউন্ট খোলার পর  সবার মনেই প্রশ্ন থাকতে পারে কি কাজ করবে।এখানে কোন ধরনের কাজ পাবে ।তাই আপনাদের মনের সব প্রশ্ন নিয়ে আমরা হাজির হলাম।এর জন্য জানতে হবে আপওয়ার্ক কি ?

UpWork কিঃ  UpWork হল একটি ওয়েব সাইট  যেখানে ভিবিন্ন ক্যাটাগরির কাজ কে সাজিয়ে রেখেছে, আর সেখানে ২ ধরনের ব্যাক্তি রেজিস্ট্রেশন করে থাকে।
১। ক্লায়েন্ট যে কাজ দিবে ২। কনট্রাক্টর যে কাজ করবে

Upwork এ কি কি কাজ পাওয়া যায়

Upwork এ কাজ করার নিয়ম

প্রতিটি মার্কেটপ্লেসের মত আপওয়ার্কেও সাধারন্ত দুই প্রকারের কাজ থাকে।

১।ফিক্সড প্রাইস কাজ

২।ঘন্টা চুক্তি কাজ 

১।ফিক্সড প্রাইস কাজঃ 

ফিক্সড প্রাইস কাজের ক্ষেত্রে কাজের মূল্য আগে থেকেই নির্ধারিত থাকে ।আপনি আপওয়ার্কে এর মার্কেটপ্লেসে গেলেই যখন নতুন কাজের তালিকা দেখবেন তখন কাজের হেডলাইনের   নিচে বা পাশেই দেখতে পারবেন এটা ফিক্সড প্রাইস কাজ নাকি ঘন্টা চুক্তি কাজ ।নতুনদের জন্য ফিক্সড রেটে কাজ না করাই ভালো কারন এর গ্যারান্টি থাকে না।একটি কাজ যদি ১০০$ এর ফিক্সড রেটে করলেন ,অনেক পরিশ্রমের পর কাজটি সাবমিট করলেন কিন্তু আপনার কাজ বায়ারের পছন্দ হলো না  এবং আপনাকে কোনো পেমেন্ট করলো না ।সেক্ষেত্রে আপনার কিছু করার নাই।তবে আপনি আপওয়ার্ক এর সাপোর্ট এর কাছে নালিশ করতে পারবেন।এরপর আপওয়ার্ক টিম মেসেজ এর মাধ্যমে আপনার ও বায়ারের কথা শুনবে তারপর স্বিদ্ধান্ত নেবে আপনি কাজ টা করতে পারেন নাই নাকি বায়ার আপনার সাথে প্রতারনা করেছে।তবে সিদ্ধান্ত সাধারনত বায়ারের পক্ষেই যায় কারন আপনি আপওয়ার্কে না থাকলে তাদের কোনো লস নেই ।কিন্তু বায়ার না থাকলে তাদের লস।এর ফলে আপনার একাউন্টে one disput এড হবে।পরবর্তীতে অন্য কোনো বায়ার আপনাকে কাজ দিতে গেলে দেখবে one disput,তার মানে ধরে নেবেন আপনি কাজ পারেন না।তাই ভুলেও নতুন অবস্থায় ফিক্সড প্রাইসে কাজ করবেন না।তবে পুরানো হলে করতে পারবেন।

২।ঘন্টা চুক্তি কাজঃ 

ন্টা চুক্তি কাজের ক্ষেত্রে আপনাকে প্রতি ঘন্টা কাজের উপর টাকা পাবেন।যারা নতুন কাজ করে তাদের জন্য ঘন্টা চুক্তি কাজ ভালো।কারন তারা ভুল করলেও কাজ করার জন্য টাকা পান।তবে এক্ষেত্রে টাকার পরিমান কম থাকে।তাই পুরাতন যারা তারা ফিক্সড প্রাইসে কাজ করতে সাচ্ছন্দ বোধ করে।

আপওয়ার্ক এ কাজের প্রকারভেদ

ফ্রিল্যান্সিং এর উপর ভিত্তি করে চালিত আপওয়ার্ক এ বিভিন্ন ধরনের কাজের দেখা মিলবে। মূলত শিল্প এবং দক্ষতাভিত্তিক কাজই এখানে গুরুত্ব পায়। আপওয়ার্ক এ যেসব কাজের দেখা মিলবে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য মূল ক্যাটেগরিগুলো নিম্নরূপঃ

  • ফটোগ্রাফি এবং এডিটিং
  • ভিডিও প্রোডাকশন
  • ওয়েব ডিজাইন
  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও)
  • মার্কেটিং
  • সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট
  • গ্রাফিক ডিজাইন
  • প্রোগ্রামিং
  • সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট
  • লিটারেচার (লেখা ও এডিটিং)
  • কপিরাইটিং
  • এডভার্টাইজিং
  • টিচিং
  • অনুবাদ করা
  • কন্ঠ প্রদান (ভয়েস ওভার)
  • আর্ট ডিরেকশন
  • সাপোর্ট, ভার্চুয়াল এসিস্ট্যান্ট

আপওয়ার্ক ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ দুই মাধ্যমেই একাউন্ট ম্যানেজমেন্ট ও জব অ্যাপ্লাই/মেসেজিং করা যায়। এছাড়াও তাদের পেমেন্ট সিস্টেম অনেকটাই নিরাপদ। আপওয়ার্কে ফিক্সড প্রাইস এবং ঘন্টা হিসেবে (আওয়ারলি) পারিশ্রমিকে কাজ পাওয়া যায়। এগুলো নিয়ে অন্য একটি পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করার আশা রাখছি।

তবে আপওয়ার্ক আপনার আয়ের একটি ভালো অংক কেটে নিবে, কিন্তু এত বিশাল একটি ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ পাওয়াও সহজ ব্যপার নয়। আপওয়ার্ক আপনাকে ক্লায়েন্ট খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। এক্ষেত্রে তারা যে লভ্যাংশ গ্রহণ করছে, তা যদি আপনি মেনে নিতে পারেন তবে আপওয়ার্ক এর মাধ্যমে কাজ করা আপনার জন্য তেমন একটা অসুবিধার হবেনা।


আপওয়ার্ক বাংলাদেশ,আপওয়ার্ক একাউন্ট এপ্রুভ,আপওয়ার্ক টিপস,আপওয়ার্ক প্রোফাইল,আপওয়ার্ক একাউন্ট,আপওয়ার্ক upwork,আপওয়ার্ক টিউটোরিয়াল,আপওয়ার্ক টেস্ট,bdnaextweb.com,

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close